হাইব্রিড সোলার সিস্টেম (Hybrid Solar System)

বিদ্যুতের চাহিদা এবং দাম উভয়ই ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে, এই সমস্যার একমাত্র সমাধান হল সৌরশক্তি। বর্তমান সময়ে সোলার সিস্টেম একটি জনপ্রিয় নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস হয়ে উঠেছে। তিন ধরনের সোলার সিস্টেম রয়েছে, সেগুলি হল যথাক্রমে-অফ গ্রিড, অন গ্রিড এবং হাইব্রিড। যার কারণে লোকেরা প্রায়শই বুঝতে পারে না কোন সোলার সিস্টেম তাদের বাড়ির জন্য সঠিক হবে।

আজ এই নিবন্ধের মাধ্যমে আমরা হাইব্রিড সোলার সিস্টেম সম্পর্কে কথা বলতে যাচ্ছি। হাইব্রিড সোলার সিস্টেম ভবিষ্যতের শক্তি সমস্যার সমাধান। আজ সারাদেশে বিদ্যুতের চাহিদা বাড়ছে এবং এর উচ্চমূল্য সাধারণ মানুষের সমস্যা বাড়িয়ে দিচ্ছে। গরম হলে লো ভোল্টেজের সমস্যা হয়। যার কারণে ভারী ইলেকট্রনিক ডিভাইস চালাতে সমস্যা হয়ে থাকে। এর সমাধান হাইব্রিড সোলার সিস্টেম হতে পারে।তবে আসুন জানা যাক হাইব্রিড সোলার সিস্টেম কি? এটা কিভাবে তৈরি হয়? এটা কিভাবে কাজ করে? এর উপকারিতা কি? এর দাম কত? এই ধরনের সব প্রশ্নের উত্তর। হাইব্রিড সোলার সিস্টেম সম্পর্কিত সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেতে নিবন্ধটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

হাইব্রিড সোলার সিস্টেম কি? (Hybrid Solar System)

হাইব্রিড সোলার সিস্টেম অন গ্রিড সোলার সিস্টেম এবং অফ গ্রিড সোলার সিস্টেম উভয় হিসাবে কাজ করতে সক্ষম। যেটিতে আপনি সোলার প্যানেল থেকে আসা ইলেক্ট্রিসিটি ব্যবহার করে আপনার হোম অ্যাপ্লায়েন্স চালাতে পারবেন এবং ব্যাটারি চার্জ করতে পারবেন এবং যদি বেশি বিদ্যুত আসে তাহলে তা ফেরত পাঠিয়েও আপনার বিদ্যুৎ বিল কমাতে পারবেন।

এই সোলার সিস্টেমে, যখন আপনার ব্যাটারি সম্পূর্ণ চার্জ হয়ে যায়, তখন সোলার সিস্টেম থেকে আসা বিদ্যুৎ ঘরে থাকা উপকরণগুলিকে চালানো শুরু করে, যার ফলে আপনার মেইন বিদ্যুতের ব্যবহার অনেক কমে যায়। এর সাথে আপনার সোলার সিস্টেম যত বেশি ইউনিট বিদ্যুৎ গ্রিডে পাঠাবে, বিদ্যুৎ বিল তত কম আসবে।

কিভাবে এটা কাজ করে (How it Works)

একটি হাইব্রিড সোলার সিস্টেমে সোলার প্যানেলের একটি সিরিজ একটি সোলার ইনভার্টার সাথে সংযুক্ত থাকে যা আরও সোলার ব্যাটারি এবং ইউটিলিটি গ্রিডের সাথে সংযুক্ত থাকে। সোলার প্যানেল সূর্যের আলো শোষণ করে এবং বিদ্যুতে রূপান্তরিত করে। এই বিদ্যুৎ সংযুক্ত সোলার ইনভার্টারে যায় যা সরাসরি বর্তমান (DC) শক্তিকে (AC) শক্তিতে রূপান্তর করে। এই বিদ্যুত আমাদের ঘরের উপকরণগুলি এবং বিদ্যুত পাওয়ার জন্য ব্যবহৃত বিদ্য়ুৎ ধারা।

দিনের বেলায় যদি সোলার সিস্টেমের আউটপুট আপনার বাড়ির বিদ্যুতের চাহিদার চেয়ে বেশি হয়, অতিরিক্ত শক্তি সোলার ব্যাটারিতে সঞ্চয় করা হয় এবং একবার ব্যাটারি সম্পূর্ণ চার্জ হয়ে গেলে, বিদ্যুৎ স্বয়ংক্রিয়ভাবে "নেট-মিটার" মাধ্যমে সরকারী গ্রীডে যায়। 

রাতের বেলায় আপনার কাছে গ্রিড এবং 50% পর্যন্ত ব্যাটারি মত 2টি বিকল্প থাকবে । আপনি যদি সরকারী ইলেক্ট্রিসিটি/গ্রিড বেছে নেন, তাহলে গ্রিড আপনার লোড চালাবে এবং পাওয়ার কাটের ক্ষেত্রে, সোলার ব্যাটারি আপনার বাড়িতে পাওয়ার যোগাবে। যদি আপনার বাড়িতে ব্যাটারির 50%-এর বেশি খরচ হয়, তাহলে বাড়িতে বিদ্য়ুৎ পাওয়ার জন্য অতিরিক্ত বিদ্যুত  গ্রিড থেকে নেওয়া হবে।

হাইব্রিড সোলার সিস্টেম ইনস্টল করার উদ্দেশ্য (Purpose of Hybrid Solar System)

সারা দেশে বিশেষ ভাবে পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে পাওয়ার কাট সামান্য ঘটণা। প্রতিদিন ২ থেকে ৮ ঘণ্টা পায়ার কাট হয় থাকে । কিন্তু গ্রীষ্ম ও বর্ষাকালে এহি অবধি আর বেড়ে যায়। অতিবিরক্ত গরমের কারণে শহরাঞ্চলে এসি ব্য়বহার বেশি হয় থাকে। কিন্তু পাওয়ার কাটের জন্য় সমস্যা দেখা দেয়। এই কারণে আপনার ঘরে হাইব্রিড সোলার সিস্টেম লাগানো সর্বোত্তম উপায়। 

হাইব্রিড সোলার সিস্টেম ব্যাকআপ সহ সোলার পাওয়ার সিস্টেমের সবচেয়ে সাধারণ প্রণালী। এটি দিন এবং রাতে উভয়ই কাজ করে, দিনের বেলা সোলার প্যানেল ব্যাটারি চার্জ করে এবং এয়ার কন্ডিশনার, কুলার, টেলিভিশন এবং সাবমারসিবল পাম্পের মতো ঘরের উপযোগী উপকরণ চালায়। রাতে ইনভার্টার ব্যাটারি পাওয়ার ব্যবহার করে আপনার বাড়ির উপকরণগুলিকে চালিত করতে সাহায্য করবে।

হাইব্রিড সোলার সিস্টেমের উপাদান (Components of Hybrid Solar System)

1. সোলার প্যানেল (Solar Panel)

বাজারে 2-3 ধরনের সোলার প্যানেল পাওয়া যায়। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের জন্য এমন সোলার প্যানেলের প্রয়োজন রয়েছে, যা মেঘলা আবহাওয়াতেও বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারে। তেমনই একটি সোলার প্যানেল হল লুম শার্ক 440 ওয়াট সোলার প্যানেল (Loom Shark 440 Watt Solar Panel) । এই সোলার প্যানেল কম জায়গায় বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন করে। এটি কম সূর্যালোক বা মেঘলা আবহাওয়াতেও বিদ্যুৎ উৎপাদন অব্যাহত রাখে। এই প্যানেলটি এত বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন করে যে ঘরে পাওয়ারের অভাব হবে না।

2.ব্যাটারি (Battery)

বাজারে দুই ধরনের ব্যাটারি পাওয়া যায়। একটি হল লিড অ্যাসিড ব্যাটারি (Lead Acid Battery) এবং অন্যটি লিথিয়াম ব্যাটারি (Lithium Battery)। লিড-অ্যাসিড ব্যাটারি জন্য় সালফিউরিক অ্যাসিডের দ্রবণে সীসা এবং সীসা অক্সাইডের প্লেট ব্যবহার করা যায় । এই ব্যাটারিগুলি, সাধারণত গাড়ি এবং ট্রাকে ব্যবহৃত হয়, এছাড়াও রিচার্জেবল। লিড-অ্যাসিড ব্যাটারি কম ব্যয়বহুল, তবে এর আয়ু কম এবং নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের প্রয়োজন হয়। চার্জ হতে কমপক্ষে 10 ঘন্টা সময় লাগে।

অন্য়দিগে লিথিয়াম ব্যাটারি অনেক বেশি ব্যয়বহুল, তবে এটি রক্ষণাবেক্ষণ-মুক্ত এবং দীর্ঘ সময় ধরে চলে৷ লিথিয়াম ব্যাটারি সম্পূর্ণ চার্জ হতে মাত্র 4 ঘন্টা সময় লাগে। এর উচ্চ ক্ষমতা এবং ঘনত্বের কারণে টেকনিশিয়ান লিথিয়াম ব্যাটারি পছন্দ করেন। লিথিয়াম ব্যাটারি লিড-অ্যাসিড ব্যাটারির চেয়ে বেশি দক্ষ এবং দ্রুত চার্জ হয়। লিথিয়াম দীর্ঘ জীবনকাল এবং উচ্চ দক্ষতা সহ একটি প্রিমিয়াম ব্যাটারি। তাই পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যের জন্য লিথিয়াম ব্যাটারি সবচেয়ে ভালো। কারণ এটি অল্প সময়ে চার্জ হয়ে যায়।

3.সোলার ইনভার্টার (Solar Inverters)

আপনি যদি বাড়ির জন্য ইনভার্টার কেনার যোজনা করছেন, তাহলে দুই ধরনের ইনভার্টার রয়েছে: নন-সোলার ইনভার্টার এবং সোলার ইনভার্টার। একটি বাড়ির জন্য 1 কিলোওয়াট সোলার ইনভার্টার যথেষ্ট। কিন্তু আপনি যদি আপনার বাড়িতে 1HP ওয়াটার পাম্প চালাতে চান তবে আপনি 3 কিলোওয়াট সোলার ইনভার্টার ব্যবহার করতে পারেন। আপনি যদি এসি চালানোর প্লানিং করেন তবে আপনার 5 কিলোওয়াট সিস্টেম ব্যবহার করা উচিত। দোকান, ক্লিনিক বা ছোট মিল, পেট্রোল পাম্পের মতো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের জন্য 10 কিলোওয়াট সোলার ইনভার্টার ব্যবহার করা উচিত।

4. নেট মিটার (Net Meter)

নেট মিটারিং হল এমন একটি প্রক্রিয়া যা সৌর শক্তি থেকে কতটা বিদ্যুৎ উৎপন্ন হয়, আমরা কতটা বিদ্যুৎ ব্যবহার করেছি এবং কতটা গ্রিডে রপ্তানি করা হয় সে সম্পর্কে তথ্য দেয়। আপনার বিদ্যুতের বিল উপরের প্যারামিটারের ভিত্তিতে গণনা করা হবে।

5. সিস্টেমের ভারসাম্য (Balancing of system)

এর মধ্যে  রয়েছে  তার, ক্যাবলিং, মাউন্টিং স্ট্রাকচারগুলি, জংশন বক্সগুলি ইত্যাদি । একটি হাইব্রিড সোলার সিস্টেম গ্রিডের বাইরে স্বাধীনভাবে কাজ করে। হাইব্রিড সোলার সিস্টেম ভবিষ্যতের শক্তি সমস্যার সমাধান। এটি পাওয়ার ব্যাকআপ নিয়ে আসে। পশ্চিমবঙ্গের সোলার প্যানেলগুলি বেশিরভাগই হাইরাইজ স্ট্রাকচারে ইনস্টল করা হচ্ছে। এটি বৃষ্টির জলকে সরাসরি ছাদে আসতে বাধা দেয়, যা ছাদকে মজবুত রাখে। এ ছাড়া জায়গাটি লোকেদের চলাফেরা ও শিশুদের খেলার জন্য নিরাপদ হয় থাকে।

হাইব্রিড সোলার সিস্টেমের প্রয়োগ (Application of Hybrid Solar System)

হাইব্রিড সোলার সিস্টেমের প্রয়োজন মূলত বাড়িগুলিতে, বাণিজ্যিক ব্যবহার যেমন স্কুল, কারখানা, হাসপাতাল, প্লাণ্ট, হোটেল এবং দোকানগুলিতে হাইব্রিড সোলার সিস্টেমের প্রয়োজন হয় থাকে।

হাইব্রিড সোলার সিস্টেমের দাম (Price of Hybrid Solar System)

বর্তমানে ১ কিলোওয়াট হাইব্রিড সোলার সিস্টেমের দাম প্রায় ১ লাখ ১৫ হজার টাকা। তদনুসারে, আপনি যত বেশি কিলোওয়াট অফ গ্রিড সোলার সিস্টেম কিনবেন, দাম তত বেশি হবে।

কিভাবে হাইব্রিড সোলার সিস্টেম ইনস্টল করবেন (How To Install On Grid Solar System)

একটি হাইব্রিড সোলার সিস্টেম ইনস্টল করতে, প্রথমে আপনার বাড়িতে কত কিলোওয়াটর মিটার ইনস্টল করা আছে তা জানতে হবে। এর পরে Feasibility Report এর প্রয়োজন রয়েছে, যার জন্য আপনাকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।এর পর একটি ইঞ্জিনিয়ার ভিজিট বুক করতে হবে। ইঞ্জিনিয়ার আপনার বাড়িতে যাবেন এবং আপনার বাড়ির বিদ্যুতের প্রয়োজনীয়তা মূল্যায়ন করবেন। 


তারপর তিনি আপনাকে বলবেন আপনার বাড়িতে কত কিলোওয়াট অন-গ্রিড সিস্টেমের প্রয়োজন আছে।এটা কত খরচ হবে? এর জন্য ফিনান্স পাওয়া যাবে কি না। এর পরে সিস্টেমটি চয়ন করা হবে। তারপর সেই এলাকার বিশেষজ্ঞরা এসে আপনার বাড়িতে হাইব্রিড সিস্টেম ইনস্টল করবেন। তারপরে আপনি সোলার প্যানেল থেকে উৎপন্ন বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে পারবেন।

(Conclusion)

আপনি যদি এই নিবন্ধটি পড়ার পরে আপনার বাড়িতে হাইব্রিড  সোলার সিস্টেম ইনস্টল করার পরিকল্পনা করছেন তবে আরও তথ্যে জানার জন্য় loomsolar.com সাইট এ ভিজিট করুন। এছাড়া আপনি বাড়িতে একজন ইঞ্জিনিয়র কে ডাকতে পারেন বা আপনার এলাকায় লুম সোলারের স্থানীয় ডিস্ট্রিবিউটর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

Leave a comment

Top selling products

Loom Solar Engineer VisitEngineer Visit
Loom Solar Engineer Visit 21 reviews
Sale priceRs. 1,000 Regular priceRs. 2,000
Reviews
Dealer RegistrationLoom Solar Dealer Registration
Loom Solar Dealer Registration 237 reviews
Sale priceRs. 1,000 Regular priceRs. 5,000
Reviews